sSiteTitle

ছবিতে ছবিতে এমসিজে বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

সঞ্জয় বসাক পার্থ

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম

প্রকাশিত : ১১:৩৫ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার

ছবিতে ছবিতে এমসিজে বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

ছবিতে ছবিতে এমসিজে বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

বারো মাসের তেরো পার্বণ- বাংলার ঐতিহ্যের এই চিরায়ত রূপ নিয়েই আসর বসেছিলো সেদিন ১৪ নভেম্বর টিএসসি অডিটোরিয়ামে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক ঝাঁক শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকগণের প্রাণোচ্ছ্বল অংশগ্রহণে সেদিন টিএসসির লাল গালিচার মঞ্চটি সেদিন হয়ে উঠেছিল বাঙালি সংস্কৃতির এক প্রতিচ্ছবি। 

আর অনুষ্ঠানের শুরুতে, এমসিজে`র মেয়েরা দর্শকদের বরণ করে নিয়েছিল বিভিন্ন উৎসবের গান আর নাচে। 

অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ ছিলো নায়ক রাজ রাজ্জাক ট্রিবিউট। তাঁর-ই বিখ্যাত গান এ জুটি বেঁধে নেচে দর্শকদের এমসিজে`র ছেলেমেয়েরা মনে করিয়ে দিলো "নায়ক রাজ রাজ্জাকই সেরা"। 

 

 

 

গ্রীষ্ম থেকে বসন্ত - প্রেমের শুরু থেকে প্রেমের পূর্ণতা, অসাধারণ অভিনয় আর নাচের মিশেলে এক চমৎকার গীতিনাট্য পরিবেশন করে শিক্ষার্থীরা দর্শকদের সামনে তুলে ধরে ছিল এক প্রেমের গল্প। 

 

 

রোমান্টিকতার ঋতু বর্ষাকে নিয়ে ছিল বিশেষ আয়োজন। বর্ষার গান নিয়ে ১০ম ব্যাচ এর ছেলে-মেয়েরা দর্শকদের হৃদয়ে নামিয়েছিল ভালোবাসার মূর্ছনা। 

 

 

"আহারে আহারে, কবে যাব পাহাড়ে!"- পাহাড় টানেনা এমন মানুষ হয়তো খুব কমই পাওয়া যাবে। আর বাংলা সংস্কৃতিতে পাহাড়ি জনপদ এর রয়েছে স্বকীয় অবদান। আর তাই পাহাড়ি গানে নৃত্য পরিবেশন করে দর্শকদের মনে পাহাড়ের টান আবার নতুন করে আনলো একাদশ ব্যাচ এর মেয়েরা। 

 

গানে গানে দেয়া স্মরণ করা হলো লাকি আখন্দ এবং আব্দুল জব্বারকে, তাঁদেরই জনপ্রিয় গান গেয়ে। শুধু গায়কদলই নয়, সেই গানে সুর মিলিয়েছিলো উপস্থিত দর্শকরাও। 

 

 

জায়গায় দাঁড়িয়ে নাচ?! অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখিয়েছে এমসিজে`র শিক্ষার্থীদের মোশনলেস ড্যান্স! 

 

 

তবে সবচেয়ে বেশি যেই পরিবেশনাটি দর্শকের মন কেড়েছে সেটি ছিল তেভাগা আন্দোলনের উপর মঞ্চায়িত ১০ম ব্যাচ এর নাটক "ধান দে"। 

পেশাদার মডেলদের থেকে কোন অংশেই কম নয় এমসিজে`র শিক্ষার্থীরা- তারই প্রমাণ মিললো ফ্যাশন শোতে। 

শো-স্টপার হিসেবে ছিলেন এমসিজে`রই ৩ শিক্ষক! এমন মধুর-মজাদার সম্পর্ক শুধু এই বিভাগেই সম্ভব তা আবার প্রমাণিত হলো! 

 

সব শেষে ছিলো স্বল্প দৈর্ঘ্য বাংলা ছায়াছবি- নাচে নাগিন, বাজে বিন! নাগ নাগিনীর এমন প্রেম কাহিনী আগে কেও কখনো দেখেনি! 

 

আর পুরো সময়টা জুড়ে যে চার ব্যক্তি পুরো অনুষ্ঠানকে গেঁথেছেন এক সুতোয়- সেই চার উপস্থাপক। দর্শকদের মন জয় করে প্রমাণ করলেন- কোন অংশে তারাও কম নন।