Dhaka University Mass Communication and Journalism Department News Portal

আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট: ঢাবি শিক্ষার্থীদের ভাষা শিক্ষা কেন্দ্র

ফারহানা আক্তার

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম

প্রকাশিত : ১২:১০ পিএম, ৪ নভেম্বর ২০১৯ সোমবার | আপডেট: ০২:১৪ পিএম, ৪ নভেম্বর ২০১৯ সোমবার

ছবিঃ আধুনিক ভাষা ইন্সটিটিউট

ছবিঃ আধুনিক ভাষা ইন্সটিটিউট

আধুনিক যুগে নিজ ভাষার পাশাপাশি বিদেশি ভাষার উপর দক্ষতা থাকাটাও একজন শিক্ষার্থীর জন্য অত্যাবশ্যক হয়ে উঠেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিদেশি ভাষা শিক্ষার ক্ষেত্রে ৪৫ বছর ধরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট বা আই এম এল।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত একটি ইনস্টিটিউট হচ্ছে আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট। ১৯৭৪ সালে বিভিন্ন ভাষা শিক্ষাদানের জন্য এটি গঠিত হয়। মোট ১৪ টি ভাষায় এখানে সার্টিফিকেট কোর্স ও ডিপ্লোমা ডিগ্রি প্রদান করা হয়। শুধুমাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ই নয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বহির্ভূত শিক্ষার্থীদের জন্যও এখানে রয়েছে বিদেশি ভাষা শিক্ষার সুযোগ।

আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটে হিন্দি, চীনা, জাপানি, আরবি, কোরীয়, ফরাসি, জার্মান, ইতালীয়, ফার্সি, রুশ, স্পেনীয় ও তুর্কি ভাষার ওপর জুনিয়র, সিনিয়র, ডিপ্লোমা ও উচ্চতর ডিপ্লোমা নামে চার বছর মেয়াদি কোর্স রয়েছে। তবে ইংরেজি ভাষায় জুনিয়র এবং সিনিয়র কোর্স চালু রয়েছে। নিয়মিত প্রোগ্রাম হিসেবে ৪ টি ভাষায় অনার্স কোর্স চালু রয়েছে। প্রোগ্রামগুলো হলোঃ বি.এ ইন ইংলিশ ফর স্পিকার্স অব আদার ল্যাঙ্গুয়েজেস, বি.এ ইন ফ্রেঞ্চ ল্যাঙ্গুয়েজ এন্ড কালচার, বি.এ ইন জাপানিজ ল্যাঙ্গুয়েজ এন্ড কালচার এবং বি.এ ইন চাইনিজ ল্যাঙ্গুয়েজ এন্ড কালচার। তবে এসব বিষয়ে ভর্তি হতে হলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে খ ও ঘ ইউনিটের মাধ্যমে আবেদন করতে হয়। পাশাপাশি, প্রতিবছর অসংখ্য শিক্ষার্থী এখানে এম.ফিল এবং পি.এইচ.ডি প্রোগ্রামে ভর্তি হয়ে থাকে। প্রতি বছর মে-জুন মাসে এতে ভর্তির প্রক্রিয়া শুরু হয়। এখানে বেশিরভাগ কোর্সের মেয়াদ এক বছর। এর পাশাপাশি বছরের বিভিন্ন সময়ে স্বল্পমেয়াদী কোর্সে অংশগ্রহণের সুযোগও রয়েছে।

ভাষার কোর্সগুলোর প্রতি ধাপের পর আলাদাভাবে সার্টিফিকেট দেওয়া হয়। কিন্তু একটি ধাপে সফল হলে তবেই পরবর্তী ধাপে যাওয়ার অনুমতি পাওয়া যায়। প্রথমে এক বছর মেয়াদি জুনিয়র সার্টিফিকেট কোর্সে ভর্তির জন্য নূন্যতম উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাসকৃত শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়। এজন্য মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার যেকোনো একটিতে বা সমমানের কোনো পরীক্ষায় দ্বিতীয় বিভাগ বা বি গ্রেড অথবা জিপিএ ২.৫ থাকতে হবে। ভর্তি পরীক্ষায় সংশ্লিষ্ট দেশের সভ্যতা ও সংস্কৃতির ওপর সাধারণ জ্ঞান এবং ইংরেজি ভাষার দক্ষতা যাচাই করা হয়।

বর্তমানে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর জন্য নিজ মাতৃভাষার পাশাপাশি অন্য অন্তত একটি বিদেশি ভাষা জানা থাকাটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে। বিদেশে উচ্চশিক্ষার জন্য বা চাকরির জন্য বিদেশি ভাষা জানাটা অপরিহার্য হয়ে পড়ছে দিন দিন। চাকরির বাজারে বিদেশি ভাষা জানা থাকলে অন্যান্য প্রতিযোগিদের পেছনে ফেলে চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায় কয়েকগুণ। বিদেশি ভাষা জানার মাধ্যমে পর্যটন খাত, বিভিন্ন গণমাধ্যম, দূতাবাস, আন্তর্জাতিক সংস্থা, মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিগুলোতে রয়েছে প্রচুর কাজের সুযোগ।

এই নানবিধ সুবিধার কারণেই বর্তমানে শিক্ষার্থীদের মধ্যে দিন দিন বিদেশি ভাষা শেখার আগ্রহ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই ভাষা শিক্ষার প্রতিষ্ঠানগুলোতেও বাড়ছে শিক্ষার্থীদের ভিড়। কিন্তু অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানেই ভাষা শেখার জন্য প্রচুর টাকা খরচ করতে হয় যা সব শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য সম্ভবপর হয়ে উঠেনা। এক্ষেত্রে অনেক কম খরচেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের বিদেশি ভাষা শেখানোর দায়িত্বটি মহানভাবে পালন করে আসছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট।

আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটে স্প্যানিশ কোর্সে অধ্যয়নরত লোকপ্রশাসন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ফাতিহা ইফতি বলেন, "বিদেশি ভাষা জানা থাকাটা বর্তমানে শিক্ষার্থীদের জন্য বাড়তি যোগ্যতা হিসেবে কাজ করে। এছাড়া অনেক আগে থেকেই স্প্যানিশ ভাষার প্রতি আগ্রহ থাকায় স্প্যানিশ কোর্সে ভর্তি হওয়া। এটি ভবিষ্যতে উচ্চশিক্ষা বা চাকরির ক্ষেত্রে আমাকে সহায়তা করবে বলে বিশ্বাস করি"।

কোরীয় ভাষার কোর্সে অধ্যয়নরত ব্যবস্থাপনা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আফসানা মিমি বলেন, "ছাত্রাবস্থায় বিদেশি ভাষার কোর্স করা থাকলে ভবিষ্যতে সেটি অনেক কাজে দেয়। আর কম খরচে বিদেশি ভাষা শিখতে আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট আমাদের সহায়তা করছে"।

শুধু ছাত্রছাত্রী নয়, অনেক চাকরিজীবীও নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রের প্রয়োজনে আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটে বিদেশি ভাষা শিখছেন। তাই অনেককেই এখন আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটমুখী হতে দেখা যায় ফলে প্রতিষ্ঠানটিতে ভর্তিযুদ্ধে দিন দিন প্রতিযোগীর সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে।