Dhaka University Mass Communication and Journalism Department News Portal

ঢাবিতে ছাত্রীদের আবাসন সংকট নিরসনে ৭ মার্চ ভবন

তাহমিনা আক্তার জেনী

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম

প্রকাশিত : ১১:২১ পিএম, ১১ নভেম্বর ২০১৮ রবিবার | আপডেট: ১০:৪১ পিএম, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ বুধবার

৭ মার্চ ভবন

৭ মার্চ ভবন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ৭ মার্চ ভবন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থীর আবাসনে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন, ১১তলা বিশিষ্ট ভবনটি এ বছরের ১ সেপ্টেম্বর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

১৯৭১ সালের ৭ মার্চ ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণের দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে ভবনটির এ নামকরণ করা হয়।

পাশাপাশি ভবনটিতে রয়েছে ৭ মার্চের স্মৃতিতে নির্মিত একটি জাদুঘর যেখানে রয়েছে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের দুর্লভ আলোকচিত্র এবং মুক্তিযুদ্ধে নারীদের অংশগ্রহণ ও অবদান সম্পর্কিত তথ্য।

উদ্বোধনের পর অক্টোবর মাস থেকে ভবনটিতে ছাত্রীদের জন্য সিট বরাদ্দ দেয়া শুরু হয়। নতুন এ ভবনটি নির্মাণের ফলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম সমস্যা আবাসন সংকট কিছুটা হলেও হ্রাস পাবে বলে মনে করছেন শিক্ষার্থীরা।

আর এতে অন্যান্য হলের ছাত্রীরাও পাচ্ছেন আবাসন সুবিধা । শুধু তাই নয়, আগে যেখানে অনেক বেশি সময় পর্যন্ত হলটির ছাত্রীদেরকে দ্বৈতাবাসিক থাকতে হতো এ ভবন নির্মিত হওয়ায় এখন তার অনেক আগে থেকেই একক সিট পাচ্ছেন ছাত্রীরা।

এ ব্যাপারে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত রোকেয়া হলের আবাসিক ছাত্রী খাদিজাতুল কোবরা জানান, আগে এ হলের ছাত্রীরা ৪র্থ বর্ষের শেষ দিকে একক সিট পেতেন। কিন্তু নতুন এ ভবনটি হওয়ায় এখন দ্বিতীয় বর্ষ থেকেই ছাত্রীরা একক সিটে থাকতে পারছেন।

শুধুমাত্র তাই নয় নতুন এ ভবনে এমন অনেক সেবাই চালু হয়েছে যা আগে হলটিতে চালু ছিল না। হলটির ছাত্রীরা এখন আগের চেয়ে আরো উন্নত পরিবেশে, আরো ভাল সুবিধা পেয়ে তাদের শিক্ষা কার্যক্রম চালাতে পারবেন বলে অভিমত আবাসিক শিক্ষকদের। হল কর্তৃপক্ষ ছাত্রীদের সর্বোচ্চ সুবিধার কথা বিবেচনায় রেখেই কাজ করছে বলেও মন্তব্য তাঁদের।

তবে, ছাত্রীদের আবাসন সমস্যা সমাধানে যেমন এ ভবন নির্মাণ করা হয়েছে তেমনি ছাত্রদের আবাসন সমস্যাও যেন শীঘ্রই সমাধানের উদ্যোগ নেয়া হয় সেজন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন বেশ কয়েকজন আবাসিক ছাত্র।

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম/তসাজ