Dhaka University Mass Communication and Journalism Department News Portal

ঢাবি’তে ১ টাকায় বিদেশি ভাষা শিক্ষা  

রিতু কর্মকার

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম

প্রকাশিত : ১২:২১ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০১৯ সোমবার

ভাষার স্কুলে চলছে পাঠদান (ছবি: রিতু কর্মকার)

ভাষার স্কুলে চলছে পাঠদান (ছবি: রিতু কর্মকার)

চলতি বছরে এপ্রিলের ২৮ তারিখে ক্লাস শুরু হয়। ছয়মাসের একেকটি কোর্স। মোট ৩০টি ক্লাস হয়ে থাকে। কোর্সের নিবন্ধন ফি মাত্র ৩০ টাকা অর্থাৎ প্রতি ক্লাসের ফি ১ টাকা। এই টাকা দিয়ে বোর্ড, মার্কার, শিট ইত্যাদি কেনা হয়ে থাকে। ছয়মাস পর উত্তীর্ণ হলে পরে বিনামূল্যে আরও ছয়মাসের জন্য যুক্ত হওয়া যাবে। সপ্তাহে দুই দিন শুক্র এবং শনিবারে ঢাবি’র সিনেট ভবনের সিড়িঁতে অথবা মসজিদের বারান্দায় একদল শিক্ষার্থীকে সমবেত হতে দেখা যায় এই ভাষা শিক্ষার জন্য।এখানে ইংরেজি, চায়নিজ, ফ্রেঞ্চ, স্প্যানিশ, জাপানিজ, আরবি ও ফারসি ভাষা সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়ে থাকে।  

সংগঠনটির মূল উদ্যোক্তা সিরাজি বলেন, ‘এ বছরের ৮ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক গ্রপে তার ভাবনা জানান । যারা বিদেশি ভাষা জানে এবং অন্যদের শিখাতে আগ্রহী এমন ১০ জনকে নিয়ে তিনি মাল্টিপল ল্যাঙ্গুয়েজ লার্নিং ক্লাব গঠন করা হয়েছে। প্রথমে শিক্ষার্থী সংখ্যা ছিল ৬০০। এখন সেই সংখ্যা ৭০০ তে দাড়িঁয়েছে’।

‘শুরুর দিকে একাধিক ভাষা শেখানোর প্রস্তাব রাখা হয়েছিল। কিন্তু সমস্যা হয়েছিল অধিকাংশ শিক্ষার্থী ইংরেজি ভাষা শিখতে চায়। এর ফলে ইংরেজি ব্যাচে চাপ বেড়ে যাচ্ছে। আর অন্যান্য ব্যাচে শিক্ষার্থী কম। তাই একজন শিক্ষার্থী এককালে মাত্র একটি ভাষাই শিখতে পারবেন-এরকম সিদ্ধান্ত নেয়া হয় , জানান সিরাজি।  

ইরান থেকে পিএইচডি করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফারসি শিক্ষক মুমিত আল রশিদ এই ছাত্রদের সঙ্গে ক্লাস নিয়ে থাকেন। তিনি ফারসি ভাষা শেখান।

আরবি ভাষা ও সাহিত্যের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ইবরাহিম নাফিজ এখানে ইংরেজি ও আরবি পড়ান। তিনি বলেন, ইংরেজির  জন্য প্রতিটি ক্লাসে একটি করে আউটলাইন এবং বাংলা ভাষাকে কিভাবে ইংরেজিতে অনুবাদ করতে হয় সেই বিষয়টির উপর জোর দেয়া হয়’। এছাড়া পরবর্তীতে ব্রিটিশ উচ্চারণ, আরবির সাধারণ এক্সপ্রেশন, ইংরেজি ব্যাকরণের সাথে মিলিয়ে আরবি ও কোরআনের ৮৯ শতাংশ শব্দ ও বাক্য শেখানো হবে যেন শিক্ষার্থীরা কোরআন পড়লে সহজে বুঝতে পারবেন বলে জানান তিনি।

লোকপ্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী মনিরুল ইসলাম শিখছেন চায়নিজ ভাষা। তিনি বলেন, ‘প্রথমে সাধারণভাবে কথাবার্তা, শব্দ উচ্চারণ- এসব শিখছি। সহজভাবে শেখানো হচ্ছে বলে বেশ ভালোই লাগছে’।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী তাহমিনা আক্তার তরুণদের উদ্যোগে গঠিত মাল্টিপল ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাবের সফলতা কামনা করেছেন। তিনি বলেন, ‘বর্তমানে বিদেশে পড়াশোনা, চাকরিসহ বিভিন্ন কাজে একাধিক ভাষায় দক্ষতা থাকা জরুরী। শিক্ষার্থীরা আনেক টাকা খরচ করে শুধু এই ভাষা শেখার জন্য। কিন্তু এখানে মাত্র ৩০ টাকার বিনিময়ে আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা খুব সহজেই পছন্দের ভাষাটি শিখতে পারছি’।

ইসমাইল হোসেন সিরাজির সাথে আরো অনেকেই একত্রিত হয়েছেন। নানা ভাষায় দক্ষতা ও তাদের অর্জিত জ্ঞানকে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিতে চান। এসময় বাংলা ও ইংরেজি ভাষা ছাড়া অন্য আরেকটি ভাষায় দক্ষতা অর্জন করাকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে ভাবা হচ্ছে।