Dhaka University Mass Communication and Journalism Department News Portal

ঢাবি ক্যাম্পাসে মেট্রোরেল: কী ভাবছে শিক্ষার্থীরা?

কানিজ, তৈমুর, জিম, সিনথিয়া ও মিরাজ

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম

প্রকাশিত : ০১:২২ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সোমবার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনের অংশে মেট্রোরেল নির্মাণের কাজ চলছে, ছবি: কানিজ ফাতেমা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনের অংশে মেট্রোরেল নির্মাণের কাজ চলছে, ছবি: কানিজ ফাতেমা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের ভেতর দিয়ে মেট্রোরেল রুট তৈরী হবে জানার পর থেকেই শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ধরনের সম্ভাব্য সমস্যার কথা তুলে ধরে আন্দোলন করে আসছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠনগুলোর মধ্যে রয়েছে মতবিরোধ। কিছু সংগঠন এই প্রকল্পে সমর্থন দিলেও অনেকেই এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে জানিয়েছে তীব্র প্রতিবাদ।

ইতোমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ। এই অবস্থানে এসে মেট্রোরেল নিয়ে কী ভাবছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা? তা জানতে চাওয়া হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে।

ক্যাম্পাসে মেট্রোরেলের যৌক্তিকতা প্রসঙ্গে অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাহিদ হাসান বলেন, “আমি পরিবারের সাথে উত্তরাতে থাকি। সকাল ছয়টার মধ্যে ঘুম থেকে উঠে, ফ্রেশ হয়ে নয়টার ক্লাস ধরতে বেরিয়ে পড়ি। তবুও ট্রাফিক জ্যামের কারণে ২০-৩০ মিনিট দেরি হয়ে যায়। মেট্রোরেল চালু হলে আশা করি ট্রাফিক জ্যামে বিড়ম্বনা থাকবেনা। তাই মেট্রোরেল প্রকল্পকে ইতিবাচকভাবে দেখছি”।

মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী অদিতি হামিদ বলেন, “গতকাল মিডটার্ম পরীক্ষায় অংশ নিতে দুইঘণ্টা আগে রওনা দিয়েছিলাম। কিন্তু পরীক্ষার হলে পৌঁছেছি পরীক্ষা শুরু হওয়ার ১৫ মিনিট পর। রাস্তার বেহাল অবস্থার কারনে প্রতিদিন ক্লাসেও সময়মত পৌঁছাতে পারিনা। মেট্রোরেল চালু হলে আশা করি এসব সমস্যা আর থাকবেনা”।

টিএসসির পাশ দিয়ে মেট্রোরেল চললে শব্দের কারনে পড়ালেখার পরিবেশ নষ্ট হবে বলে অভিযোগ করেছিলেন অনেক শিক্ষার্থী।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জানিয়েছে, ক্যাম্পাস অতিক্রম করার সময় মেট্রোরেলের গতি কম রাখা হবে এবং শব্দদূষণ কমাতে সাউন্ডপ্রুফ ব্যবস্থা রাখা হবে।

ফার্মেসী বিভাগের শিক্ষার্থী সুমাইয়া আমিন বলেন, “ক্যাম্পাসে মেট্রোরেলের কারনে ঐতিহাসিক স্থাপনাগুলোর সৌন্দর্য নষ্ট হবে এবং বহিরাগতদের ভীর বেড়ে ক্যাম্পাসের পরিবেশ নষ্ট হতে পারে তা সত্য। কিন্তু তার থেকে বড় কথা হলো ঢাকা শহরের যানজট দূর হবে। সুতরাং সার্বিকভাবে চিন্তা করলে, মেট্রোরেল একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প।”

ঢাকা শহরে ট্রাফিক জ্যামের কারণে প্রতিদিন নষ্ট হয় লক্ষ লক্ষ কর্মঘণ্টা। এই পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ পেতে মেট্রোরেল গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে মনে করেন ফলিত গণিত বিভাগের তুলি। তিনি বলেন, “সবার কল্যাণের কথা চিন্তা করলে এমন ছোটখাট অসুবিধা মেনে নেয়া যায়”।