Dhaka University Mass Communication and Journalism Department News Portal

বর্ণাঢ্য আয়োজনে ৫৬তম বিভাগ দিবস উদযাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম

প্রকাশিত : ০৩:১৫ পিএম, ২ আগস্ট ২০১৮ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০১:০৮ এএম, ৩ আগস্ট ২০১৮ শুক্রবার

বর্ণাঢ্য আয়োজনে ৫৬তম বিভাগ দিবস উদযাপন

বর্ণাঢ্য আয়োজনে ৫৬তম বিভাগ দিবস উদযাপন

ঢাবি: বর্ণাঢ্য ও উৎসবমুখর পরিবেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ৫৬তম বিভাগদিবস উদযাপন হয়েছে। ২ আগস্ট (বৃহস্পতিবার) এই আয়োজনে ছিল র‌্যালি, আলোচনাসভা ও আপ্যায়ন। দিবসটি উপলক্ষে বিভাগের শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবনে বিভাগ এলাকা সাজিয়ে তোলে বর্ণিল সাজে। 

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ থেকে বের হয় র‌্যালি। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, বিভাগের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষক, বর্তমান শিক্ষার্থীরা ছাড়াও অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা এই র‌্যালিতে অংশ নেন। 

র‌্যালিটি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি এলাকা ঘুরে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে মোজাফ্ফর আহমেদ চৌধুরী মিলানায়তনে আলোচনা সভা শুরু হয় এর পরপরই। এতেও প্রধান অতিথি ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। 

আলোচনা সভায় ‘গণমানুষ, গণমাধ্যম, গণতন্ত্র’ শিরোনামে স্মারক বক্তৃতা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমিরিটাস অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। সভাপ্রধান ছিলেন বিভাগের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. কাবেরী গায়েন। 


বক্তৃতায় অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ‘গণমাধ্যমের শক্তি বাড়ছে গণমাধ্যমের ওপর আক্রমণ, নিয়ন্ত্রণও বাড়ছে। বাংলাদেশে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি কিন্তু গণমাধ্যমের ওপর নিয়ন্ত্রণ আছে। সংবাদপত্র প্রকাশ করতে হলে অনুমতি নিতে হয়। সেই অনুমতি নেওয়াও সহজ নয়। অনুমতি পেলেও চালু রাখা সম্ভব নয় নিরবে নিয়ন্ত্রণ চলছে, আত্মনিয়ন্ত্রণ চলছে।’ 

তিনি বলেন, রাষ্ট্রের পাশাপাশি মালিক নিজেও নিয়ন্ত্রণ করে। নিয়ন্ত্রণের আরেকটা বড় শক্তি হচ্ছে বিজ্ঞাপন, এমন মত দিয়ে এই ইমিরিটাস অধ্যাপক বলেন, আমরা দেখি বিজ্ঞাপন এখন মিডিয়াকে গ্রাস করে ফেলেছে। এবং মিডিয়া বিজ্ঞাপন প্রচারের যন্ত্রে পরিণত হয়েছে। বিজ্ঞাপনের কারণে সংবাদ কোণঠাসা হচ্ছে।

সমগ্র ব্যবস্থায় একটা পুঁজিবাদী নিয়ন্ত্রণ দেখছি, বলেন তিনি।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বলেন, উদারতার চর্চায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিকতা বিভাগ এগিয়ে। তিনি এমন অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ দেন। উপাচার্য বলেন, অনেক কিছুতেই সাংবাদিকতা বিভাগ অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত তৈরি করছে। বিভাগ দিবসের আয়োজনেও তার প্রমাণ মিললো। 

অনুষ্ঠানে তাজরীন স্মৃতি বৃত্তি, তৌহিদুল আনোয়ার স্মৃতি বৃত্তি, নভেরা দিপীকা স্মৃতি বৃত্তি তুলে দেওয়া হয়। এর মধ্যে ইশরাত জাহান প্রমী তাজরীন স্মৃতি বৃত্তি, তৌহিদুল আনোয়ার স্মৃতি বৃত্তি এবং রাগীব রহমান নভেরা দিপীকা স্মৃতি বৃত্তি পেয়েছেন। 

এবারের বিভাগ দিবসে ‘dumcjedu.com’ ও ‘dumcjnews.com’ নামে দুটি ওয়েবসাইটের উদ্ধোধন করা হয়।

dumcjedu.com সাংবাদিকতা বিভাগ সম্পর্কে সব ধরনের তথ্য জানাবে এবং dumcjnews.com এ বিভাগের শিক্ষার্থীরা হাতেকলমে সাংবাদিকতার চর্চা করতে পারবে।

ডিইউএমসিজেনিউজ/২ আগস্ট ২০১৮