Dhaka University Mass Communication and Journalism Department News Portal

হুমায়ূনের জন্মদিনে রঙিন টিএসসি

ফয়েজ আহমেদ ও মেহজাবিন তুলি

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম

প্রকাশিত : ১০:৩৯ পিএম, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ বুধবার | আপডেট: ১২:৫০ এএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার

হুমায়ূনের জন্মদিনে রঙিন টিএসসি

হুমায়ূনের জন্মদিনে রঙিন টিএসসি

হলদে-নীল কর্কশীট জুড়ে আছে জরি, রূপা, বদি, শুভ্র, বাকের ভাই, মিসির আলী আর লীলাবতীদের নাম। পাশে বড় করে লেখা “হুমায়ূন জন্মোৎসব ২০১৮”। আগ্রহ নিয়ে ভেতরে প্রবেশ করতেই প্রিয় লেখকের নানান বইয়ের প্রচ্ছদে টিএসসির সাজানো চত্বর ফিরিয়ে নিয়ে গেল কৈশোর আর তারুণ্যের শুরুর দিনগুলোতে। পকেট ছাড়া হলুদ পাঞ্জাবী পরা হিমুর দল আর নীল শাড়ির রূপারা প্রতিদিনের চেনা টিএসসির বুকে কেমন ঘোর লাগা একটা আবহ নিয়ে এল যার সাথে আমাদের পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন সাহিত্যের ‘বাদশাহ নামদার’ হুমায়ূন !

বছর চারেক যাবত এভাবেই ১৩ই নভেম্বরে দেশের বিভিন্ন স্থানে হিমু-রূপাদের নিয়ে বাংলা সাহিত্যের কিংবদন্তী লেখক হুমায়ূন আহমেদের জন্মবার্ষিকী পালন করে আসছে তরুণ সংগঠন ‘হিমু পরিবহন’। ২০১৩ সালে চ্যানেল আইয়ের সহযোগিতায় এ উদ্যোগের সূচনা হলেও পরবর্তীতে এককভাবে এ আয়োজন পরিচালনা করতে থাকে সারাদেশে ছড়িয়ে থাকা প্রায় ২০০ সক্রিয় সদস্যের এ সংগঠন। এ বছরও ৩৭টি জেলার ৪২টি কাউন্টার হতে হুমায়ুন আহমেদের ৭০তম জন্মদিন পালিত হয়েছে।


সকাল ৭টার সময়ে সাতজন ‘হিমু’ খালিপায়ে নুহাশপল্লীর উদ্দেশ্যে হেঁটে আয়োজনের শুভ সূচনা করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি অডিটোরিয়ামে আয়োজনটি শুরু হয় সন্ধ্যা ৬ টায়। জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটার পাশাপাশি সারাদেশের হুমায়ূন ভক্তদের লেখা নিয়ে সংকলিত বই ‘ডাকপিওন’ এবং হিমু পরিবহনের বিশেষ ক্রোড়পত্রের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

অনুষ্ঠানে পুঁথিপাঠের মাধ্যমে লেখকের জীবনী তুলে ধরা হয়। মনোমুগ্ধকর পুঁথির মাঝখানেই চলে সংগীত আর নৃত্যের পরিবেশন।হুমায়ূন আহমেদ নিয়ে যেখানে আয়োজন সেখানে গৎবাঁধা পরিবেশনার বাইরে কিছু থাকবে তাই তো স্বাভাবিক; পুঁথি, আবৃত্তি, গান আর নাচের ফাঁকেই তাই ছিল ফয়সাল আহমেদের জাদু পরিবেশন। সে জাদু দেখে আকাশের ওপার থেকে হুমায়ূন মুচকি হাসি দিচ্ছিলেন কিনা তা কে বলতে পারে! বেঁচে থাকতে তিনি নিজেও যে জাদু দেখিয়ে মানুষকে চমকে দিতে ভালবাসতেন!



                         



অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গীতিকার শহীদুল্লাহ ফরায়েজী , প্রকাশক মাযহারুল ইসলাম, জাতীয় জাদুঘরের সংরক্ষক ও বিশিষ্ট কবি ড.শীহাব শাহরিয়ার, হুমায়ূন গবেষক সাইদুর রহমান, কবি লিলি হক, ফয়জুল হক জহির প্রমুখ। লেখককে নিয়ে কথা বলতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন অন্যপ্রকাশের মাযহারুল ইসলাম। হিমু পরিবহনকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, “রবীন্দ্রনাথের পর হয়তো হুমায়ূন আহমেদই সেইজন যার বিচরণ ঘটেছে সাহিত্যের সকল শাখাতে-প্রবন্ধ, উপন্যাস, নাটক,সিনেমা, গান, পরিচালনা, চিত্রকলা, জাদু সবকিছুতে ছিল তাঁর সমান দক্ষতা। এখন হুমায়ূন আহমেদের কাজ নিয়ে জাহাঙ্গীরনগর , রাজশাহী এমনকি ভারতের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা হচ্ছে। এ এক বিরল পাওয়া।’’

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম/তসাজ