Dhaka University Mass Communication and Journalism Department News Portal

৩১ মে থেকে সীমিত পরিসরে খোলা থাকছে ঢাবি`র অফিসসমূহ

ডিইউএমসিজেনিউজ.কম

প্রকাশিত : ১২:২০ পিএম, ১ জুন ২০২০ সোমবার | আপডেট: ০৯:২০ পিএম, ১ জুন ২০২০ সোমবার

৩১ মে থেকে সীমিত পরিসরে খোলা থাকছে ঢাবি`র অফিসসমূহ

৩১ মে থেকে সীমিত পরিসরে খোলা থাকছে ঢাবি`র অফিসসমূহ

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শুধুমাত্র অফিসসমূহ সীমিত পরিসরে ৩১/০৫/২০২০ তারিখ হতে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত খোলা থাকবে

আদিষ্ট হয়ে এতদ্বারা সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, স্বাস্থ্য বিধি ও সামাজিক দূরত্ব নীতিমালা অনুসরণে ও নিম্নোক্ত শর্তসমূহ যথাযথ প্রতিপালন করে অতি প্রয়োজনীয় দাপ্তরিক কার্যাবলি সম্পাদন, শিক্ষকদের গবেষণা কাজে সহায়তা প্রদান এবং ভবনাদি বিশেষ করে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান/স্থাপনাদি রক্ষণাবেক্ষণের স্বার্থে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শুধুমাত্র অফিসসমূহ সীমিত পরিসরে ৩১/০৫/২০২০ তারিখ হতে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত খোলা থাকবে।

শর্তাবলি ও করণীয়

১। ন্যূনতম সংখ্যক অত্যাবশ্যক জনবল নিয়ে সীমিত পরিসরে অফিস কার্যক্রম চালু থাকবে। এজন্য সংশ্লিষ্ট অফিস প্রধান প্রতি ১৪ দিনের রোস্টার তৈরি করবেন। অন্যরা যে কোন সময়ে অফিসে আসার প্রয়োজনে নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করবেন এবং সংশ্লিষ্ট অফিসের সাথে যোগাযোগ রাখবেন। কোন কর্মকর্তা/কর্মচারী গণপরিবহন ব্যবহার করবেন না; অতি প্রয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন সেবা প্রদান করা হবে।

২।  প্রত্যেক সম্মানিত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী অফিস চলাকালীন সময়ে অবশ্যই মাস্ক পরিধান করবেন। সামাজিক দূরত্ব নীতিমালা অনুসরণ করে অফিসে বসবেন ও চলাচল করবেন।

৩।  সকলকে জীবাণুমুক্ত ও সুরক্ষিত থাকতে পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখতে হবে। অফিস এলাকা ও সংশ্লিষ্ট ভবন পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন ও জীবাণুমুক্ত রাখতে হবে। স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ ও পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট অফিস প্রধানগণ প্রয়োজনীয় সামগ্রী, তথা - মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস, সাবান/স্যানিটাইজার, ডিটারজেন্ট পাউডার/ব্লিচিং পাউডার, হারপিক, ডেটল/স্যাভলন, টিস্যু পেপার  ইত্যাদির সংস্থান রাখবেন।

৪। পরিচ্ছন্নতা কর্মী, নিরাপত্তা কর্মী, অফিস সহায়ক, মালি এবং অন্যান্য জরুরি সেবা কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীদের স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণের প্রতি বিশেষ যত্নশীল থাকতে হবে এবং এ নিমিত্তে তাদের জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী অফিস প্রধানগণ সরবরাহ করবেন।  

৫। প্রত্যেক অফিস-ভবনের প্রবেশ পথে তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্রের (ইনফ্রারেড থার্মোমিটার/থার্মাল স্ক্যানার) ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে। এতদ্বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ভবন-কর্তৃপক্ষ (ডিন, প্রভোস্ট, চেয়ারম্যান, লাইব্রেরিয়ান, পরিচালক, চিফ মেডিকেল অফিসার ও এস্টেট ম্যানেজার) প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। এক্ষেত্রে প্রয়োজনে যথাক্রমে চিফ মেডিকেল অফিসার ও প্রকৌশল দপ্তরের পরামর্শ/সহায়তা গ্রহণ করা যেতে পারে।  

৬। অফিস চলাকালীন কেউ অফিসের বাইরে ঘোরাফেরা করবেন না । অতি জরুরি প্রয়োজন ব্যতিরেকে অন্য অফিসে গমনাগমন করবেন না। টেলিফোনে ও তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে দাপ্তরিক কাজ সম্পন্ন করবেন।

৭। প্রভিডেন্ট ফান্ড, পেনশন, বেনাভোলেন্ট ফান্ড ইত্যাদি লেনদেনের জন্য কাউকে সশরীরে কোন অফিসে আসার প্রয়োজন নাই। এতদ্বিষয়ে অনলাইনে আবেদন করবেন। এক্ষেত্রে প্রয়োজনে ০১৭১৫-৭০০৫৪০ (হিসাব পরিচালক) নম্বরে যোগাযোগ করে সহায়তা নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদেরকে অনুরোধ করা হলো।

৮। ছুটি ও বিদেশ গমনের উদ্দেশ্যে এনওসি-এর জন্য কারো অফিসে আসার প্রয়োজন নাই। এতদ্বিষয়ে অনলাইনে আবেদন করবেন। এক্ষেত্রে ০১৫৫২৩০৫৪২৯ (ডেপুটি রেজিট্রার, প্রশাসন-১) নম্বরে যোগাযোগ করলে প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও সহায়তা পাবেন।  

৯। কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামগ্রিক পরিচর্যা ও রক্ষণাবেক্ষণের, বিশেষ করে পান্ডুলিপি শাখা, রেয়ার সেকশন এবং পুরাতন পত্রিকা শাখা রক্ষণাবেক্ষণের প্রতি যত্নশীল থাকার জন্য লাইব্রেরিয়ান মহোদয়কে বিশেষ অনুরোধ জানানো হলো।  

১০। নিজ নিজ প্রতিষ্ঠান/বিভাগের লাইব্রেরি, সেমিনার লাইব্রেরি, ল্যাবরেটরি, গবেষণাগার, জাদুঘর, ভাস্কর্য, স্মারক স্থাপনা প্রভৃতি রক্ষণাবেক্ষণে বিশেষভাবে যত্নশীল থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ/অফিস প্রধানকে বিশেষ অনুরোধ জানানো হলো। উল্লিখিত স্থাপনাদির রক্ষণাবেক্ষণে ও পরিচালনায় নিয়োজিত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/কর্মচারীদের স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণের উপযুক্ত উপকরণাদি/সামগ্রী প্রদান করতে হবে।

১১। এই সময়ে অন্যান্য জরুরি কাজের মধ্যে ইতোমধ্যে অনুষ্ঠিত পরীক্ষাসমূহের ফলাফল চূড়ান্তকরণ ও তা প্রকাশের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানানো হলো।

১২। বিভাগ/ইনস্টিটিউট শিক্ষকদের গবেষণাকর্মে দাপ্তরিক সহায়তা প্রদান করতে এবং নিজস্ব স্থাপনা/প্রতিষ্ঠানাদি পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে ও রক্ষণাবেক্ষণে প্রয়োজনে অতি সীমিত পরিসরে অফিস খোলা রাখবেন।  

১৩। আবাসিক হলসমূহ হলের সার্বিক পরিবেশ পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে ও নিজস্ব স্থাপনা/প্রতিষ্ঠানাদির রক্ষণাবেক্ষণে সংশ্লিষ্টদের সহায়তা দেয়ার জন্য প্রয়োজনে অতি সীমিত পরিসরে অফিস খোলা রাখবেন। হলের মূল গেট সার্বক্ষণিক বন্ধ থাকবে।

১৪।  সংশ্লিষ্ট সম্মানিত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী ব্যতীত অন্য কেউ যেন কোন ভবনে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য সকল ভবনের মূল গেট বন্ধ রাখতে হবে

১৫। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রবেশে ও চলাচলে বিদ্যমান সকল ব্যবস্থা ও বিধি-নিষেধ বলবৎ থাকবে।

 

(মো. এনামউজ্জামান)
রেজিস্ট্রার
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

 

press release/tonmoy